Breaking News
Home / পাবনা সদর / শারীরিকভাবে লাঞ্ছিতের অভিযোগ তুলে মুক্তিযোদ্ধা বাবলু ও তার সহযোগিদের সংবাদ সম্মেলন, জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা

শারীরিকভাবে লাঞ্ছিতের অভিযোগ তুলে মুক্তিযোদ্ধা বাবলু ও তার সহযোগিদের সংবাদ সম্মেলন, জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা

পাবনার বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট সাইফুল আলম বাবলুকে গেজেট ও লাল মুক্তিবার্তা বাতিলকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের দ্বারা শারীরিকভাবে লাঞ্ছিতের অভিযোগ তুলে তার প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মুক্তিযোদ্ধারা। এছাড়াও জেলা প্রশাসক কর্তৃক আয়োজিত জাতীয় দিবসের সকল অনুষ্ঠান বর্জনেরও ঘোষণা দেন তারা।
শনিবার (১৯ নভেম্বর) দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাবের ভিআইপি মিলনায়তনে ‘ভারতে সামরিক প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ৭১’র মুক্তিযোদ্ধা সংসদ পাবনা জেলা ইউনিটের’ ব্যানারে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
লিখিত বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার বলেন, ‘গত ১ নভেম্বর দুপুরে পাবনা জেলা প্রশাসকের দফতর থেকে দাফতরিক কাজ শেষে ফেরার সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলম বাবলুকে অফিস চত্বরের নিচে কয়েকজন গেজেট ও লাল মুক্তিবার্তা বাতিলকৃত স্বব্যাখ্যায়িত দাবিদার মুক্তিযোদ্ধারা অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে এবং কয়েকজন বাবলুকে কিলঘুষি দেন। এক পর্যায়ে মেজর (অব.) ডা. মনসুর জনাব বাবলুকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন।’
তিনি আরও বলেন, ‘পরবর্তী পরিস্থিতি ও সৃষ্ট সমস্যার সমাধানকল্পে পাবনা জেলা প্রশাসক বিশ্বাস রাসেল হোসেন বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) একটি বৈঠকের আয়োজন করেন। সেই বৈঠকে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে বাবলুকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তশূলক শাস্তির দাবি জানানো হয় এবং মুক্তিযোদ্ধা বাবলু আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দেন। বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহাদয় শোনার পরও কোনও আশ্বাস দেন নাই। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পাবনা জেলা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান হাবিব সুজানগরের যুদ্ধে বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন সন্টু অংশগ্রহণ করেন নাই বলে মন্তব্য করেন এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে তুফানি ব্যাটালিয়ান বলে কোনও বাহিনী ছিল না বলেও দাবি করেন।’
তারা বলেন, ‘এমনতাবস্থায় মুক্তিযোদ্ধারা ডিসি অফিসের বৈঠক বর্জন করে বের হয়ে আসেন। এসময় ডিসি অফিস চত্বরে বিক্ষোভ এবং বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকদের উদ্ভুদ্ধ পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময় করেন। তারা জেলা প্রশাসকের নিষ্ক্রিয়তায় গভীর ক্ষোভ প্রকাশ করেন। অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা নাহলে আগামীতে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের তত্ত্বাবধানে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য জাতীয় দিবসে নির্ধারিত সকল অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা হলো।’
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট সাইফুল আলম বাবলু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার, বীর মুক্তিযোদ্ধা বদিউজ্জামান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর, বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিয়ার রহমান সাচ্চু, বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম মাহাবুবুর রশীদ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হামিদুর রহমান প্রমুখ।
তবে এবিষয়ে যোগাযোগ করা হলে পাবনা জেলা মুক্তিযোদ্ধা হয়রানি প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর (অব.) মীর্জা মনসুর বলেন, ‘লাঞ্ছিতের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলম বাবলু ও তার সহযোগিরা মুক্তিযোদ্ধা সংসদে একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা ও চাঁদাবাজিতে বাধা দেয়ায় পাবনায় মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্নভাবে হয়রানি ও লাঞ্ছিত করে আসছেন। এর বিরুদ্ধে পাবনার বীর মুক্তিযোদ্ধারা মাঠে নেমেছেন এবং ৭ দফা দাবিতে আন্দোলন করছেন। সেই আন্দোলন বানচাল করার জন্য বাবলু ও তার সহযোগিরা আজকে এই সংবাদ সম্মেলন করেছেন।’
তিনি আরও বলেন, ‘ সাইফুল আলম বাবলু মহান মুক্তিযুদ্ধের শেষ সময়ে নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসেন। তিনি কোথাও যুদ্ধ করেছে এমন প্রমাণ বাবলু দিতে পারবেন না। মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে সাইফুল আলম বাবলু কর্তৃক যেসবস্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট সনদ বাতিল করা হয়েছে, তারা ইতোমধ্যেই হাইকোর্টে রীট পিটিশন দাখিল করেছেন। বিজ্ঞ আদালত ইতোমধ্যে শুনানি শেষে গেজেট সনদ কেন বাতিল ঘোষণা করা হবে না- মর্মে রুল জারি করেছেন। এমনতাবস্থাতেও বাবলু ও তার সহযোগিরা মিথ্যা ও বানোয়াট অভিযোগ তুলে জাতীর শ্রেষ্ট সন্তানদের নানাভাবে হয়রানির চেষ্টা করছেন।’

Check Also

উন্নয়ন তরান্বিত করতে কর্ম চুক্তি সম্পাদন, সিটিজেন চার্টার, শুদ্ধাচার বাস্তবায়ন করতে হবে-জেলা প্রশাসক

রফিকুল ইসলাম সুইট : পাবনা জেলা প্রশাসক বিশ^াস রাসেল হোসেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার …

সরকার শিক্ষা ব্যবস্থা উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে – এমপি প্রিন্স

মিজানুর রহমান: পাবনা সদর উপজেলার চর ঘোষপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন করা হয়েছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *