Wednesday , August 17 2022
Breaking News
Home / চাটমোহর / ভাঙ্গুড়ায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

ভাঙ্গুড়ায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধিঃ পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন খাঁন মিঠুর বিরুদ্ধে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। ইউনিয়নটির বিভিন্ন গ্রামের অর্ধশতাধিক জনগণ এ সংক্রান্ত লিখিত অভিযোগ গত বুধবার (২৭জুলাই) ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দপ্তরে জমা দিয়েছেন। পাশা-পাশি অভিযোগটি পাবনা-৩ এর সাংসদ, দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সচিব, পাবনার জেলা প্রশাসক সহ বিভিন্ন দপ্তরে সদয় অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্মিত্তে অনুলিপি প্রেরণ করেছেন। মনোয়ার হোসেন খাঁন মিঠু গত বৎসর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন। তিনি আওয়ামী লীগের পদধারী কোনো নেতা-কর্মি নয়। পার্শ্ববর্তী সিরাজগঞ্জ -৪ আসনের প্রায়াত সাংসদ ও বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ মির্জার ভাগ্নে ও এলাকায় অত্যান্ত জনপ্রিয় ব্যক্তি হওয়ায় হ্যাভি ওয়েট নৌকার প্রার্থীকে বিপুল ভোটে পরাজয় করে ছিল।
লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, ২০২১-২০২২ অর্থবছরে ইজিপিপি কর্মসূচির নন ওয়েজ প্রকল্পের মহিষবাথান গ্রামে পূননির্মিত একটি রাস্তায় কালভার্ট নির্মাণ না করে এ প্রকল্পের ৯৬হাজার ৯শ’৬৮টাকা উত্তোলন, টি আর দ্বিতীয় পর্যায়ে ময়দান দীঘি বাজারের আব্দুর রাজ্জাকের দোকান হইতে পুরাতন ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত রাস্তায় নামমাত্র মাটির কাজ করে ৩লাখ টাকার বিল উত্তোলন, দ্বিতীয় পর্যায়ের কাবিটা প্রকল্পের বৃদ্ধমরিচ আঃরহিম মোল্লার বাড়ি হইতে তৌহিদ মোল্লার বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা সংস্কারে বরাদ্ধকৃত ১লাখ ৭৩হাজার টাকার প্রকল্পের আংশিক কাজ করে আত্মসাতের কৌশলে অবশিষ্ট রাস্তা সংস্কার কাজ গ্রামের মসজিদ ফান্ডের ৬০হাজার টাকা নিয়ে কাজ করেছেন। টি আর তৃতীয় পর্যায়ে মাদার বাড়ীয়া বাজার হইতে কালিয়ান জিরি গ্রাম অভিমুখে রাস্তা মেরামত বাবদ ১লাখ ৪৭হাজার টাকার কোন কাজ না করেই উত্তোলন, এল জি এস পি কর্মসূচির আওতায় দুধবাড়ীয়া দাখিল মাদ্রাসায় ৪লাখ ১৩ হাজার টাকার প্রকল্পে মাত্র ১লাখ টাকার কাজ করে সমদয় টাকা উত্তোলন, চন্ডীপুর গ্রামে এডিপি প্রকল্পের একটি সড়কে এইচ বি বি করণের কাজ না করে সমদয় বিল উত্তোলন। এ ছাড়া ভিজিএফ সহ বিভিন্ন মানবিক সহায়তা কর্মসূচির অন্তত ৪মেঃটন খয়রাতির চাল ভূয়ামাস্টার তৈরি করে আত্মসাতের অভিযোগ করা হয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন খাঁন মিঠুর বিরুদ্ধে গ্রাম্য আদালতে সালিশ ফি, ওয়ারিশন সনদ ও জন্ম-মৃত্যু সনদ তুলতে সরকার নির্ধারিত ফি’র চেয়ে কয়েক গুণ অতিরিক্ত টাকা ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে আদায় করা হয় বলে লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। আনিত অভিযুক্ত খানমরিচ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন খাঁন মিঠু বলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মোঃ নূরুনব্বী মন্ডল দুলাল মাস্টার আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী নির্বাচনে পরাজিত হওয়ায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান বীরমুক্তি যোদ্ধা আসাদুর রহমানের সাথে আঁতাতাত করে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে জোট বেঁধে মিথ্যা অভিযোগ ও অপপ্রচার চাল্লাচ্ছেন। তিনি আরোও বলেন, বিভিন্ন প্রকল্পের বিষয়ে যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে, তাও ভিত্তিহীন ও ষড়যন্ত্র মুলক। এ সব প্রকল্পের অধিকাংশ কাজ করা হয়েছে। খানমরিচ ইউনিয়নটি নিচু -বিল এলাকা হওয়ায় বন্যার পানির কারণে কিছু প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করা হয়নি। যা বন্যা পরবর্তী সময়ে সম্পন্ন করা হবে। আসলে আমি এলাকায় নোংরা রাজনীতির শিকার হচ্ছি। আমার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থিরা নির্বাচনে জেতার পর হুমকি দিয়ে বলেছিল, ছয় মাসের অধিক সময় মিঠু চেয়ারম্যান থাকতে দেওয়া হবে না। বর্তমান পরিস্থিতি তারই ষড়যন্ত্রের অপচেষ্টা।
অভিযোগ প্রাপ্তি নিশ্চিত করে ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাহিদ হাসান খান বলেন, উপজেলা পর্যায়ে কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে বিভিন্ন প্রকল্প ও কর্মসূচির চাল বিতরণ করা হয়ে থাকে। তিনি আরোও বলেন, কোন প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন না করে বিল ছাড় করা হয় না। এ ব্যাপারেও অভিযোগ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

About admin

Check Also

চাটমোহরে বঙ্গবন্ধুর ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন

চাটমোহর প্রতিনিধি যথাযথ মর্যাদায় নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে সোমবার (১৫ আগস্ট) পাবনার চাটমোহরে জাতির জনক …

Leave a Reply

Your email address will not be published.