Breaking News
Home / ভাঙ্গুড়া / ভাঙ্গুড়ায় ২৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক পদ শূন্য

ভাঙ্গুড়ায় ২৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক পদ শূন্য

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধিঃ পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার ২৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নেই। সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে ২৯ টি। অবসর ও মৃত্যুজনিত কারণে এবং সরাসরি নিয়োগ না থাকায় এতো পদ শূন্য হয়ে রয়েছে। এসব বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকেরা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালনের পাশপাশি পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে করে বিদ্যালয়ের দাপ্তরিক কাজ ও পাঠদান কার্যক্রম ব্যহৃত হচ্ছে। উপজেলার শিক্ষা কর্মকর্তার অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার একটি পৌরসভা ও ৬টি ইউনিয়নে ৯৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে প্রধান শিক্ষক নেই ২৩ টিতে। আর সহকারী শিক্ষকের পদশূন্য ২৯টি। এ সব বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকেরা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন।

শিক্ষক সংকট নিয়ে ওইসব বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সহকারী শিক্ষক না থাকলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককেও দাপ্তরিক কাজের পাশাপাশি অনেক ক্লাশ নিতে হয়। আবার প্রধান শিক্ষক না থাকলে সহকারী শিক্ষক প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন। এতে দাপ্তরিক কাজ করতে গিয়ে ঠিকমতো ক্লাশ নিতে পারেন না। সব মিলিয়ে শিক্ষক সংকটের কারণে উপজেলার বিদ্যালগুলোতে পাঠদান কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে খুদে শিক্ষার্থীরা। উপজেলার পরমানন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুজ্জামান সবুজ জানান, ‘আমার বিদ্যালয়ে একজন সহকারী শিক্ষকের পদ দীর্ঘদিন শূন্য রয়েছে। দাপ্তরিক কাজের পাশাপাশি আমাকেও পুরোদমে পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হচ্ছে। ৪জন শিক্ষক মিলে পাঠদান করাতে হিমশিম খাচ্ছি আমরা।’
করতকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কানিজ ওয়ারেসি বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়টিতে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছি। এ ছাড়া বিদ্যালয়ে একজন সহকারী শিক্ষকের পদও শূন্য রয়েছে। দাপ্তরিক কাজের পাশাপাশি প্রতিদিন আমাকে ৫টি ক্লাস নিতে হয়। বিদ্যালয়ে দু’জন শিক্ষক নেই। এতে ঠিক মতো না হয় দাপ্তরিক কাজ, না হয় পাঠদান।’
উপজেলা শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বরাত আলী বলেন, ‘শিক্ষক সংকটের কারণে পাঠদান কার্যক্রম ব্যহৃত হচ্ছে। শির্ঘই শূন্যপদগুলোতে শিক্ষক নিয়োগ দিতে তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো.আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘উপজেলায় ২৩টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক ও ২৯টি সহকারী শিক্ষক পদ শূন্য রয়েছে। বিষয়টি চিঠি দিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। আশা করি নভেম্বরে নতুন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। তখন এই সংকট কেটে যাবে।’

Check Also

ভাঙ্গুড়ায় ইয়াবা-হিরোইন সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধিঃ পাবনার ভাঙ্গুড়ায় থানা পুলিশ ইয়াবা-হিরোইন সহ মাদক ব্যবসায়ী ফিরোজ(৩২)কে গ্রেফতার করেছে। রোববার (৬ …

ভাঙ্গুড়ায় জাতীয় যুব দিবস পালিত

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধিঃ পাবনার ভাঙ্গুড়ায় উপজেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের আয়োজন এবং স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় জাতীয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *