Sunday , October 2 2022
Breaking News
Home / সুজানগর / পাবনা জেলা পরিষদ সদস্য পদে মনোনয়ন জমা দিলেন রাজু

পাবনা জেলা পরিষদ সদস্য পদে মনোনয়ন জমা দিলেন রাজু

এম এ আলিম রিপন
পাবনা জেলা পরিষদ নির্বাচনে সাধারণ ওয়ার্ড-৪(সুজানগর উপজেলা) সদস্য পদে বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার নিকট মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ সুজানগর উপজেলা শাখার সভাপতি সরদার রাজু আহমেদ। এ সময় সুজানগর পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পাশু সরদার, আহম্মদপুর ইউপি সদস্য আব্দুর রউফ, যুবলীগ নেতা মোস্তফা, আলাল উদ্দিন, মিজানুর রহমান রুবেল, খন্দকার রাসেল, বাদশা, রাকিব হাসান রতন, সাচ্চু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। মনোনয়ন ফরম জমা প্রদান শেষে সরদার রাজু আহমেদ বলেন, আমি কোনদিন অপরাজনীতি করিনি। চেষ্টা করেছি সবার অংশগ্রহন ও সহযোগিতায় পরিচ্ছন্ন রাজনীতি উপহার দিতে। সংগঠনকে গতিশীল করতে নেতাকর্মী সবার সহযোগিতায় একসঙ্গে কাজ করেছি। সবাইকে নিজের মতো করে আপন করার মধ্যদিয়ে রাজনীতি করছি। তিনি আরো বলেন, পাবনা জেলা পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হলে চেষ্টা করবো এলাকার উন্নয়ন মূলক কাজে বিশেষ অবদান রাখতে। জনগণের সুখ দুঃখের সাথী হতে। আশাকরি দল এবং সকল ভোটারেরা আমার ত্যাগের মূলায়ন করবে। জানাযায়, আওয়ামী পরিবারে জন্ম হওয়ায় ১৯৯৩ সালে নবম শ্রেণীর ছাত্র থাকা কালীন সময় থেকে সরদার রাজু আহমেদের ছাত্রলীগের রাজনীতির হাতেখড়ি। ১৯৯৫ সালে এন এ কলেজ ছাত্রলীগ নেতা এবং ১৯৯৭ সালে পাবনা সরকারী এডওয়ার্ড কলেজে বি কম অনার্সে ভর্তি হওয়ার পর ১৯৯৯ সালে ছাত্র সংসদের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে নির্বাচন করার মনোনয়ন লাভ করেন। ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসার পর কলেজ থেকে তাকে বিতারিত করা হয়। ২০০৩ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ সুজানগর উপজেলা শাখার এক নম্বর যুগ্ন আহ্বায়ক নির্বাচিত হন। বিএনপি জামায়াত এর দায়ের করা মিথ্যা রাজনৈতিক হয়রানীমূলক মামলায় ২০০৬ সালের ১১ জুলাই ঢাকা থেকে গ্রেফতারের পর সরদার রাজু আহমেদের উপর অমানুষিক নির্যাতন চালায় এবং বাম পা ভেঙ্গে দেয় র‌্যাব । সে সময় দীর্ঘ ১৯ মাস কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পান তিনি। ওয়ান ইলেভেনের সময় বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কারা মুক্তির দাবিতে রাজপথে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মিছিল-সমাবেশ করার কারণে সরদার রাজু আহমেদকে মামলার আসামি বানিয়ে সে সময় বিভিন্নভাবে নির্যাতন চালায় সেনাবাহিনী। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ সুজানগর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে অদ্যবধি আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে তিনি তার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। এছাড়া রাজনীতি করতে গিয়ে তিনি একাধিকবার বিএনপি-জামায়াত এর পাশাপাশি পুলিশের দ্বারা নির্যাতনেরও স্বীকার হন। উল্লেখ্য সরদার রাজু আহমেদ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সুজানগর উপজেলা শাখার সাবেক সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান প্রয়াত আবুল কাশেমের পুত্র এবং সুজানগর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীনুজ্জামান শাহীনের আপন বড় ভাই।

About admin

Check Also

সুজানগরে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় শিক্ষককে পিটিয়ে আহত করল ছাত্র

এম এ আলিম রিপনঃ বিদ্যালয়ের মেয়ে শিক্ষার্থীদের ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় পাবনার সুজানগরে আবু বক্কার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.