Breaking News
Home / চাটমোহর / চায়না দুয়ারির ফাঁদে চলনবিলের দেশীয় মাছ বিলুপ্তির পথে,ধ্বংস হচ্ছে জলজপ্রাণি

চায়না দুয়ারির ফাঁদে চলনবিলের দেশীয় মাছ বিলুপ্তির পথে,ধ্বংস হচ্ছে জলজপ্রাণি

চাটমোহর প্রতিনিধি
কারেন্ট জালের থেকেও ভয়ংকর এক জাল চায়না দুয়ারি। এই জাল চাটমোহরসহ চলনবিলের নদ-নদী ও জলাশয়ে ছেয়ে গেছে। চায়না দুয়ারির ফাঁদে পড়ে বিলুপ্ত হচ্ছে শেীয় প্রজাতির মাছ। এই জালে শুধু দেশীয় প্রজাতির মাছই নয়,আটকা পড়ছে সব প্রজাতির জলজপ্রাণি। স্বল্প ব্যয়ে ও পরিশ্রমে বেশি আয়ের উৎম হওয়ায় জেলে ও মৌসুমী মাছ শিকারীদের কাছে এটি খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।
চলনবিল অঞ্চলে চায়না দুয়ারি জাল দিয়ে প্রকাশ্যে মাছ শিকার করা হচ্ছে। তবে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এ ব্যাপারে জোরালো কোন ভূমিকা নেই বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। জেলেরা জানান,লোহার রডের গোলাকার বা চতুর্ভুজ আকৃতির কাঠামোর চারপাশে ‘চায়না জাল’ দিয়ে ঘিরে এই ফাঁদ তৈরি করা হয়। প্রতিটি জালের দৈর্ঘ্য ৫০ ধেকে ৭০ হাত। রয়েছে একাধিক দুয়ার বা মুখ।
বাংলাদেশের প্রচলিত কোন মৎস্য আইন ও বিধিমালায় সরাসরি চায়না দুয়ারি জাল নিষিদ্ধ করা হয়নি। তবে মৎস্য রক্ষা ও সংরক্ষণ বিধিমালায় সাড়ে ৪ সেন্টিমিটার বা তার থেকে কম ব্যাসার্ধের ফাঁস বিশিষ্ট জাল ব্যবহারে নিষেধাজঞা রয়েছে।
স্থানীয় বাসিন্দা ও জেলেরা নাম প্রতাশ না করার শর্তে জানান,এই জাল বসালে নদী বা বিলের পানি প্রবাহে বাধা সৃষ্টি হয়। তাছাড়া জালের ছিদ্র ছোট হওয়ায় ছোট বড় কোন মাছ বের হওয়ার সুযোগ নেই।ধ্বংস হচ্ছে জলজপ্রাণিও।
চাটমোহর সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সুজিত কুমার মুন্সি জানান,চায়না দুয়ারি কারেন্ট জালের বিরুদ্ধে মৎস্য দপ্তরের অভিযান অব্যাহত আছে। মৎস্য সম্পদ রক্ষায় মৎস্য বিভাগ নিয়মিত অভিযান ও সচেতনতামূলক প্রচারনা চালাচ্ছে।

Check Also

চাটমোহরে তাজা ও বিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার বিএনপি’র নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

চাটমোহর প্রতিনিধি চাটমোহর পৌর শহরের আফ্রাতপাড়া মহল্লায় বিএনপি নেতা হাসাদুল ইসলাম হীরার মালিকানাধিন ডায়মন্ড ফুড …

চাটমোহরে ট্রলির চাপায় শিক্ষক নিহত

চাটমোহর প্রতিনিধি চাটমোহর-জোনাইল সড়কের চাটমোহর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের সোন্দভা নামক স্থানে খড়ি বোঝাই ট্রলির নিচে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *