Breaking News
Home / চাটমোহর / চাটমোহরে তাজা ও বিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার বিএনপি’র নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

চাটমোহরে তাজা ও বিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার বিএনপি’র নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

চাটমোহর প্রতিনিধি
চাটমোহর পৌর শহরের আফ্রাতপাড়া মহল্লায় বিএনপি নেতা হাসাদুল ইসলাম হীরার মালিকানাধিন ডায়মন্ড ফুড এন্ড বেভারেজের পাশে থেকে ৬টি ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। এরমধ্যে ২টি ককটেল বিস্ফোরিত ছিল। মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে এই ককটেল উদ্ধার করা হয়। ককটেল উদ্ধারের ঘটনায় চাটমোহর থানায় উপজেলা ও পৌর বিএনপির ৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৮০/৯০ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। তবে ঘটনাটিকে ‘সাজানো’ বলে দাবি করেছে বিএনপি।
চাটমোহর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন জানায়,আফ্রাতপাড়া মহল্লায় উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ডায়মন্ড ফুড অ্যান্ড বেভারেজের মালিক হাসাদুল ইসলাম হীরার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ভেতরে বিএনপি নেতাকর্মীরা নাশকতার পরিকল্পনায় গোপন বৈঠক করছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বিএনপি নেতাকর্মীরা দুটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় পুলিশ প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি চালালে প্রতিষ্ঠানের সামনে রাস্তার পাশে ৬টি ককটেল পাওয়া যায়। এরমধ্যে ২টি বিস্ফোরিত ছিল। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৪টি তাজা ককটেল উদ্ধার করে পুলিশ।
পুলিশের দায়েরকৃত মামলায় উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক,সাবেক সদস্য সচিব ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ডায়মন্ড ফুড এন্ড বেভারেজের স্বত্তাধিকারী হাসাদুল ইসলাম হীরাকে প্রধান আাসামি করা হয়েছে।
এ বিষয়ে চাটমোহর উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক,সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাসাদুল ইসলাম হীরা জানান,এধরণের কোন ঘটনাই ঘটেনি। মঙ্গলবার আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বিএনপির কোনো বৈঠক ছিল না। সোমবার আমাদের বৈঠক হয়েছে। বিএনপির বৈঠক বা ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানোর প্রশ্নই আসে না। এটা পুলিশ এবং আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের সাজানো একটি নাটক। আগামী ৩ ডিসেম্বর বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশে যাতে চাটমোহর উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মী অংশ নিতে না পারে, সে জন্যই এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। এখন উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীর নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হবে।
বিএনপির একাধিক নেতা জানান,আগামী ৩ তারিখে বিএনপির রাজশাহীর বিভাগীয় সমাবেশে বিএনপির অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা যেন অংশগ্রহণ না করতে পারে এজন্য পুলিশ নেতাকর্মীদের অজ্ঞাত আসামি করে মামলা সাজিয়েছে।
চাটমোহর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম নজরুল ইসলাম বলেন,রাতে স্থানীয় এমপির সঙ্গে আমরা সনাতন ধর্মাবলম্বীদের একটি অনুষ্ঠানে ছিলাম। এ সময় বিএনপির অফিসের সামনে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা জানতে পারলাম। বিএনপির জন্মই নাশকতা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে। তারা ভাষণ দিচ্ছে আগামী ১০ ডিসেম্বর থেকে দেশ চলবে খালেদা জিয়ার কথামতো। সেজন্য তারা সারাদেশের মতো চাটমোহরেও নাশকতা করার চেষ্টা করছে।
থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দিন জানান,বিএনপি’র ৬ জনের নাম এজাহারে উল্লেখসহ ৮০/৯০ জন নেতাকর্মীকে অজ্ঞাত করে মামলা করা হয়েছে। কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

Check Also

চাটমোহরে বাল্যবিয়ে নিরোধ কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

চাটমোহর প্রতিনিধি পাবনার চাটমোহরে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধের লক্ষ্যে উপজেলা বাল্যবিয়ে নিরোধ কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। …

চাটমোহরে আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

চাটমোহর প্রতিনিধি চাটমোহর উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা বুধবার (২৩ নভেম্বর) সকালে উপজেলা পরিষদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *