Breaking News
Home / ফিচার খবর / চাটমোহরে চাচিকে ধর্ষনের অভিযোগে ভাতিজা গ্রেফতা

চাটমোহরে চাচিকে ধর্ষনের অভিযোগে ভাতিজা গ্রেফতা

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি
পাবনার চাটমোহরে চাচীকে ধর্ষনের অভিযোগে ভাতিজাকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার (১ আগস্ট) সন্ধ্যায়। গ্রেফতারকৃত হলো উপজেলার নিমাইচড়া ইউনিয়নের পারমাঝগ্রামের মৃত আঃ কুদ্দুসের ছেলে মোঃ মকবুল হোসেন (৩২)। এ ব্যাপারে চাটমোহর থানায় গ্রেফতারকৃত মকবুল হোসেনের চাচী একই গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের স্ত্রী (৪৫) নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সংশোধনী ২০০৩ এর ৯ (১) ধারায় মামলা করেছেন। মামলা নং ১,তাং ১/৮/২২ইং।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে,নিমাইচড়া পারমাঝগ্রামের মজিবর রহমান প্রায় ১১ বছর আগে মারা যান। সে মারা যাবার পর তার স্ত্রীর প্রতি কু-নজর পড়ে মজিবরের বড় ভাই আঃ কুদ্দুসের ছেলে মকবুল হোসেনের। ২ সন্তান নিয়ে মজিবরের বিধবা স্ত্রী পরীজান সংসার সামলাচ্ছিলেন। এ অবস্থায় মকবুল হোসেন তাকে নানাভাবে কু-প্রস্তাব দিতে থাকে। প্রায় ৫ বছর আগে একদিন ঘরে ঢুকে চাচীকে ধর্ষনের চেষ্টা করে মকবুল। এনিয়ে গ্রাম্য সালিসে মকবুল হোসেনকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়। এরপর কিছুদিন চুপচাপ থাকলেও মকবুল হোসেন ফের তার চাচীকে উত্যক্ত করাসহ বিয়ে করার প্রলোভন দিতে থাকে। এক পর্যায়ে তার বিধবা চাচী বিয়ে করতে রাজি হয়। এ সুযোগে গত ৩১ জুলাই দিবাগত রাত ১১টার দিকে মকবুল তার চাচীর ঘরে ঢুকে বিয়ের প্রলোভনে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। এসময় বাড়ির লোকজন তাদের আটক করে বিয়ের কথা বললে মকবুল বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। হান্ডিয়াল পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দু’জনকেই চাটমোহর থানায় নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে সোমবার (১ আগস্ট) সন্ধ্যায় মৃত মজিবর রহমানের স্ত্রী পরীজান বেগম থানায় মকবুল হোসেনের বিরুদ্ধে ধর্ষন মামলা দায়ের করেন।
চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ জালাল উদ্দিন ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,এ বিষয়ে মামলা হয়েছে। আসামীকে মঙ্গলবার (২ আগস্ট) আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পাবনা পাঠানো হয়েছে।

Check Also

আমিনপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে হত্যা

আবু হানিফ খানঃ আমিনপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে যুবককে হত্যা করেছে একই এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *